মলের সাথে রক্ত যাচ্ছে, এটা কি কোলন ক্যান্সার নয়?

কোলন ক্যান্সার এর প্রধান লক্ষণগুলো কি কি?

সবাই প্রায়ই ছোট -বড় পেটের সমস্যায় ভোগেন। অনেক মানুষ বড় রোগের উপসর্গকে গুরুত্ব দেননা এবং মনে করেণ যে এটি একটি সাধারণ সমস্যা। একই ভাবে, অনেকে ভুল করে ভাবেন যে মলের সাথে রক্তক্ষরণের সমস্যাও অতি সাধারণ। তারা জানেন না যে, এটি কোলন ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে।

কোলন-ক্যান্সার নারী ও পুরুষ উভয়েই পাওয়া যায়। তবে জীবনযাত্রার পরিবর্তনের মাধ্যমে এই রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। গবেষকদের মতে, স্বাস্থ্যকর খাদ্য এবং নিয়মিত ব্যায়াম কোলন ক্যান্সারকে ৪৫ শতাংশ কমাতে পারে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, পরিবারে কোলন-ক্যান্সারে আক্রান্ত কেউ থাকলে পরিবারের অন্যদেরও ঝুঁকি বেড়ে যায়। MSH3 ভাইরাস, যা কোলন ক্যান্সারের সৃষ্টি করে, জিনের মাধ্যমে সহজেই এক দেহ থেকে অন্য দেহে ছড়িয়ে পড়ে।

এই ক্ষেত্রে, ব্যাঙের ছাতার মতো কিছু পলিপ মানব দেহের মলদ্বারে গঠিত হয়। যদি চিকিৎসা না করা হয় তবে এটি কোলন ক্যান্সার হতে পারে। বিশেষজ্ঞদের মতে, কোলন ক্যান্সারের প্রাথমিক পর্যায়ে ভালোভাবে বোঝা যায় না। ফলে অনেকেই এর উপসর্গ বুঝতে পারেন না।

এক্ষেত্রে, দেরি হলেই এই সমস্যা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। কোলন-ক্যান্সার সাধারণত ৫০ বছর বা তার বেশি বয়সের মানুষের মধ্যে দেখা যায়। যাইহোক, জীবনধারা এবং খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তনের কারণে, ৩০-৩৫ বছর বয়সীদের মধ্যেও কোলন-ক্যান্সার বা রেকটাল ক্যান্সারের প্রবণতা বাড়ছে।

ব্রিটেনের বেশিরভাগ মানুষের কোলন বা রেকটাল ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি দেখা গিয়েছে। আসুন জেনে নেই কিভাবে কোলন বা রেকটাল ক্যান্সার চিনবেন?

মলত্যাগের সময় রক্তক্ষরণের কারণে অর্শ্বরোগ, পাইলস বা কোষ্ঠকাঠিন্য হয়। একই ভাবে কোলন বা রেকটাল ক্যান্সার হলেও মলের সাথে রক্ত ​​বের হয়। তাহলে কোলন ক্যান্সারকে আলাদা করার উপায় কি?

অঙ্কোলজিস্ট বা ক্যান্সার বিশেষজ্ঞদের মতে, যদি মলত্যাগের সময় রক্ত ​​বের হয়, তবে অন্তত একবার মলের রঙ পরীক্ষা করুন। মলের রঙই বলে দেবে কোলন-ক্যান্সার শরীরে স্থির হয়েছে কি না!

রক্তের রং যদি গাঢ় বা কালো হয়, তাহলে তা চিন্তার বিষয়। পাইলসের ক্ষেত্রে, মল থেকে যে রক্ত ​​বের হয় তা বাদামী বর্ণের হয়। কোষ্ঠকাঠিন্যের ক্ষেত্রেও এই ধরনের রক্ত ​​দেখা দেয়।

ডাক্তাররা বলছেন যে মলের রং গাঢ় বাদামি বা কালচে লাল হলে অবিলম্বে একজন ডাক্তারের পরামর্শ নিন। কোলন ক্যান্সারের ক্ষেত্রে খাওয়ার সময় তলপেটে ব্যথা হয়।

ক্যান্সার বিশেষজ্ঞদের মতে, যদি কখনো মলের সঙ্গে রক্ত ​​বের হয়, তাহলে তার রঙ ভালোভাবে লক্ষ্য করুন। মাসে কতবার এমন হয় তার খোঁজ রাখুন। যদি এই সমস্যা প্রায়ই দেখা দেয়, অবিলম্বে একজন ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন।

রেফারেন্সঃ

jugantor.com

somoynews.tv

jagonews24.com

পরবর্তী পোস্ট পূর্ববর্তী পোস্ট
মন্তব্য নেই
মন্তব্য যোগ করুন
comment url