নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন ফরম পূরণ করবেন যেভাবে অনলাইনে?

নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন

আপনি যদি আপনার সন্তান বা অন্য কারো নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন ফরম পূরণ করবেন অনলাইনে করতে চান, তাহলে এই পোস্টটি আপনার জন্য। কেননা কিভাবে অনলাইনে নতুন জন্মনিবন্ধন আবেদন ফরম পূরণ করতে হয় (Jonmo Nibondhon Form Online) অথবা (Birth Registration Form Online) সঠিকভাবে পূরণ করতে হয় তা নিচে ছবি সহ বর্ণনা করা হয়েছে।

নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন

বর্তমানে হাতে লেখা নিবন্ধন ফর্ম আর পূরণ করা যাবে না এবং আবেদন করা যাবে না তাই প্রত্যেক নাগরিককে অনলাইনে তাদের নিবন্ধন করতে হবে। আজকের পোস্টে আপনি জানতে পারবেন অনলাইনে এই নিবন্ধনের জন্য কী কী তথ্য প্রয়োজন এবং কীভাবে জন্মনিবন্ধন আবেদনপত্র পূরণ করতে হয়।

নতুন জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন

বাংলাদেশ সরকারের জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন আইন ২০০৪ অনুযায়ী জন্মের ৪৫ দিনের মধ্যে নতুন নিবন্ধন বাধ্যতামূলক।

বিভিন্ন সমস্যার কারণে যদি ৪৫ দিনের মধ্যে নিবন্ধন করা না যায়, তবে শিশুর বয়সের ৫ বছরের মধ্যে নিবন্ধন করতে হবে।

এবং যদি বয়স ১৮ বছরের বেশি হয়, তবে অনলাইন নিবন্ধনের জন্য প্রচুর অতিরিক্ত তথ্য এবং কাগজপত্রের প্রয়োজন হয় এবং তুলনামূলকভাবে বেশি ঝামেলা হয়৷

অনলাইন জন্মনিবন্ধন আবেদন ফরম পূরণের নিয়ম

অনলাইনে নিবন্ধনের জন্য আবেদন করার ওয়েবসাইট কোনটি তা অনেকেই জানেন না, অনলাইনে আবেদনের জন্য পুরানো ওয়েবসাইটটি নতুন ওয়েবসাইট দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়েছে। এখন নিবন্ধনের নতুন লিঙ্ক https://bdris.gov.bd

জন্মনিবন্ধন আবেদনকারীর সকল তথ্য সঠিকভাবে দিতে হবে। তথ্য দেওয়ার সময় খেয়াল রাখতে হবে যাতে কোনো তথ্য ভুল না হয়, তথ্য ভুল হলে পরবর্তীতে সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন।

জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করার ধাপ

  • ধাপ ১: জন্মনিবন্ধন আবেদন করার জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করুন
  • ধাপ ২: নিবন্ধনকারী ব্যক্তির পরিচয় এবং জন্ম ঠিকানা প্রদান করুন
  • ধাপ ৩: পিতা এবং মাতার তথ্য প্রদান করুন
  • ধাপ ৪: স্থায়ী এবং বর্তমান ঠিকানা প্রদান করুন
  • ধাপ ৫: আবেদনকারীর তথ্য প্রদান করুন

ধাপ ১: জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করার জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করুন

প্রথমত, নিবন্ধনের জন্য কিছু কাগজপত্র তৈরি করতে হবে। এ জন্য বিভিন্ন বয়সের জন্য কাগজপত্রেও ভিন্নতা রয়েছে।

জন্মের পর প্রথম ৪৫ দিনের মধ্যে শিশুদের জন্মনিবন্ধন করার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্রগুলি হল:

১. শিশুর এক কপি রঙিন পাসপোর্ট সাইজের ছবি।

২. জন্ম সনদ নিবন্ধন অনলাইন আবেদনপত্রের প্রিন্ট কপি।

৩. শিশুর ইপিআই কার্ড বা টিকা কার্ড।

৪. আবেদনকারীর পিতা-মাতা/অভিভাবকের মোবাইল নম্বর।

৫. বাংলা-ইংরেজি উভয় ভাষায় পিতা এবং মাতার অনলাইন নিবন্ধিত জন্ম সনদ (বাংলা এবং ইংরেজি বাধ্যতামূলক)।

৬. পিতা-মাতার জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি।

৭. সন্তানের পিতা-মাতার উভয়ের কর প্রদানের প্রমাণ।

উপরের সমস্ত কাগজপত্রগুলি ৪৬ দিন থেকে ৫ বছর বয়সী শিশুদের জন্য প্রয়োজন৷

৫ বছরের ঊর্ধ্বে শিশু বা যেকোনো ব্যক্তির ক্ষেত্রে-

১. জন্ম সনদ নিবন্ধন অনলাইন আবেদনপত্রের প্রিন্ট কপি।

২. শিশুর রঙিন পাসপোর্ট সাইজের এক কপি ছবি।

৩. বয়স প্রমাণের জন্য একজন ডাক্তারের কাছ থেকে প্রত্যয়ন পত্র (বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিল দ্বারা স্বীকৃত এমবিবিএস বা তার বেশি ডিগ্রি)।

৪. PSC (প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী), JSC (জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট) বা SSC (মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট) বা এর সমমানের সার্টিফিকেট।

৫. পিতামাতার অনলাইন জন্ম সনদ নিবন্ধনের কপি (বাংলা ও ইংরেজি বাধ্যতামূলক)।

৬. পিতা ও মাতার জাতীয় পরিচয়পত্র।

৭. জন্মস্থান বা স্থায়ী ঠিকানা প্রমাণ করার জন্য পিতা/মাতা/দাদা/দাদীমার নামে স্থায়ী ঠিকানা হিসাবে উল্লিখিত স্থানের বিপরীতে নবায়ন করা ট্যাক্স পেমেন্ট সার্টিফিকেট

অথবা, বাসস্থান প্রমাণের সাপেক্ষে পৌরসভার চেয়ারম্যান বা ওয়ার্ড কাউন্সিলরের দ্বারা স্বাক্ষরিত প্রত্যয়নপত্র।

ধাপ ২: নিবন্ধনকারী ব্যক্তির পরিচয় এবং জন্ম ঠিকানা প্রদান করা

অনলাইনে জন্মসনদ নিবন্ধনের আবেদনের জন্য প্রথমে আপনাকে Birth Registration এর ওয়েবসাইট https://bdris.gov.bd লিঙ্কে যেতে হবে। আপনি সেখানে নিবন্ধন আবেদনপত্র পূরণ করতে পারেন। ভিজিট করার পর নিচের ছবির মত একটি পেজ দেখতে পাবেন।

নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন

আপনি যেখানে নিবন্ধন করতে চান সেই ঠিকানাটি নির্বাচন করুন।

নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন

অর্থাৎ, যে ব্যক্তি নিবন্ধন করতে চান, তার জন্মস্থানের ইউনিয়ন পরিষদ বা পৌরসভা বা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন করুন এবং পরবর্তী বাটনে ক্লিক করুন।

নামের দুটি অংশ থাকলে নামের প্রথম অংশের বক্সে প্রথম অংশ এবং নামের শেষ অংশের বক্সে দ্বিতীয় অংশ লিখতে হবে এবং নামের তিনটি অংশ থাকলে প্রথম দুটি অংশ নামের প্রথম অংশের বক্সে লিখতে হবে এবং তারপর নামের শেষ অংশের বক্সে দ্বিতীয় অংশ লিখতে হবে।

ইংরেজিতে একইভাবে পূরণ করুন। এছাড়াও, অন্যান্য বিবরণ এবং জন্মস্থানের ঠিকানা সঠিকভাবে পূরণ করুন।

তারপর ডান পাশের পরবর্তী বাটনে ক্লিক করুন।

ধাপ ৩: পিতা এবং মাতার তথ্য প্রদান করুন

এই ধাপে, নিবন্ধিত ব্যক্তি বা শিশুর পিতামাতার অনলাইন বা ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন নম্বর এবং জাতীয়তা প্রদান করতে হবে।

নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন

তারপর আপনার পিতামাতার ডিজিটাল Birth Registration Number প্রবেশ করার পরে স্বয়ংক্রিয়ভাবে নামগুলি আসবে, এখানে আপনি সম্পাদনা করতে পারবেন না।

এই কারণে, আপনাকে প্রথমে আপনার পিতামাতার Birth Registration ডিজিটাল নাকি অনলাইন কিনা তা পরীক্ষা করতে হবে।যদি পিতামাতার জন্ম সনদ তথ্য অনলাইনে পাওয়া না যায়, তাহলে সন্তানের Birth Registration আবেদন করা যাবে না।

তবে, নিবন্ধনকারীর জন্মতারিখ ২০০০ বা তার আগে হলে, আপনি পিতামাতার নাম দিতে পারেন এবং তাদের জন্ম নিবন্ধিত না হলে কোন সমস্যা নেই।

তথ্যটি পূরণ করুন এবং তারপর ডান পাশের পরবর্তী বাটনে ক্লিক করুন।

ধাপ ৪: স্থায়ী এবং বর্তমান ঠিকানা প্রদান করুন

অনলাইন Birth Registration আবেদনের এই ধাপে, আপনাকে আপনার বর্তমান এবং স্থায়ী ঠিকানার তথ্য প্রদান করতে হবে।

নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন

আপনার স্থায়ী ঠিকানার জন্য, জন্মস্থান এবং স্থায়ী ঠিকানা একই হলে চেক বক্সে (লাল বক্সে চিহ্নিত) টিক দিন। এছাড়াও, বর্তমান ঠিকানার ক্ষেত্রে, স্থায়ী ঠিকানা এবং বর্তমান ঠিকানা একই হলে চেক বক্সে (লাল বক্সে চিহ্নিত) টিক দিন।

অন্যথায় ঠিকানা এক না হলে ঠিকানা নির্বাচন করে গ্রাম, বাড়ি ও রাস্তার নম্বর লিখুন। তারপর পরবর্তী বাটন টিপুন।

ধাপ ৫: আবেদনকারীর তথ্য প্রদান

এই পর্যায়ে, এই Birth Registration এর জন্য আবেদনকারী ব্যক্তিকে তার নিজের তথ্য প্রদান করতে হবে। সাধারণত সন্তানের নিবন্ধনের জন্য দায়ী ব্যক্তি হলেন পিতা, মাতা বা আইনগত অভিভাবক। তাই তারা শিশু নিবন্ধনের জন্য আবেদন করে।

আপনি যদি আপনার নিবন্ধনের জন্য আবেদন করে থাকেন। তাহলে নিজ নির্বাচন করুন।

তারপর Next বাটনে ক্লিক করুন।

ফর্মটি সফলভাবে জমা দেওয়ার পরে আপনি Birth Registration Application Form পিডিএফ মুদ্রণ এবং ডাউনলোড করার অপশন পাবেন। আপনার নিবন্ধন আবেদনপত্রটি প্রিন্ট করুন এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ আপনার ইউনিয়ন পরিষদ/পৌরসভা বা সিটি কর্পোরেশনে জমা দিন।

অবশেষে,

আশা করি পোস্টটি আপনার ভালো লেগেছে, উপরের ধাপগুলো অনুসরণ করে আপনি সহজেই নিবন্ধনের আবেদনপত্র অনলাইনে পূরণ করতে পারবেন, আপনি নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। Birth Registration Online আবেদন সম্পর্কে আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করুন।

আরও পড়ুন – অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই, জন্মনিবন্ধন হয়েছে কি না?

Similar Posts